রেজি নং -৬১০, বর্ষ-১১, সংখ্যা-৩৪।   Email: info@souhardobd.com,   মোবাইল: ০১৭৫৪-০৬৫৭০১

বৃহস্পতিবার , ডিসেম্বর ১২ ২০১৯
Home / আইন-আদালত / এডিস নিয়ন্ত্রণে আরও কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের

এডিস নিয়ন্ত্রণে আরও কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের

অনলাইন ডেস্ক :
সারাদেশে ছড়িয়ে পড়া ডেঙ্গু রোগের বাহক এডিস মশা নিয়ন্ত্রণের জন্য আরও কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বুধবার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ ও এডিস মশার আবাসস্থল ধ্বংসে ঢাকাসহ সারাদেশে ব্যাপকভাবে ওষুধ ছিটানো ও অভিযান পরিচালনারও নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

সরকারের সংশ্লিষ্টদের এডিস মশা নিধনে আরও কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দিয়ে এ ব্যাপারে অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ১৬ অক্টোবর দিনধার্য করেন আদালত। মশা নিধনে মালয়েশিয়ার উদাহরণ টেনে আদালত বলেন, প্রয়োজনে স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত দু’একদিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে সব শ্রেণির মানুষকে সঙ্গে নিয়ে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ ও এডিস মশার আবাসস্থল ধ্বংসে একযোগে অভিযান পরিচালনা করা যেতে পারে।

আদালতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার তৌফিক ইনাম টিপু। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার কাজী মাঈনুল হাসান। এর আগে গত সোমবার হাইকোর্ট এডিস মশা নিধনে ব্যর্থতার দায় নির্ধারণে তদন্ত কমিটি গঠনে ২৮ আগস্ট আদেশ দেয়া হবে বলে জানিয়েছিল। কিন্তু এদিন রাষ্ট্রপক্ষ ও সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে বলা হয়, এ সময় তদন্ত কমিটি করা হলে মশা নিধনের কার্যক্রম ব্যাহত হবে। পরে আদালত তদন্ত কমিটি গঠনের কোনও আদেশ না দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সারা দেশে ছড়িয়ে পড়া এডিস মশাবাহী ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ফের বেড়েছে। সোমবার সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে সারাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে নতুন করে ১২৯৯ জন ভর্তি হয়েছেন।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ২৭ আগস্ট পর্যন্ত ৬৬ হাজার ৬৪ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। যার মধ্যে ৬০ হাজার ৫৬৯ জন চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরেছেন। সরকারি হিসাবে এখন পর্যন্ত ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা আরও বেশি।